জার্মানিতে ক্ষোভের মধ্যেই হিটলারের চিত্রকর্ম নিলামে

0 min read

নিউজ ডেস্ক: জার্মানির যুদ্ধবাজ নাৎসি নেতা অ্যাডলফ হিটলারের আঁকা পাঁচটি চিত্রকর্ম নিলামে উঠছে। আজ শনিবার জার্মানির নুরেমবার্গে এ নিলাম অনুষ্ঠিত হবে। নাৎসি যুগের স্মারকের এমন রমরমা বাজার দেখে দেশটিতে ব্যাপক ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। নুরেমবার্গের মেয়র উলরিখ ম্যালি এ নিলাম আয়োজনের নিন্দা প্রকাশ করে বলেছেন, ‘এটা অরুচিকর।’

শনিবার বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়, নিলামে তোলা হিটলারের পাঁচটি চিত্রকর্মের পাহাড়ঘেঁষা হ্রদের চিত্রকর্ম রয়েছে। এটির দাম শুরু হবে ৪৫ হাজার ইউরো থেকে। নিলামে নাৎসি প্রতীক (স্বস্তিকা) সংবলিত বেতের হাতলওয়ালা একটি চেয়ার বিক্রি করা হবে। চেয়ারটি হিটলারের ব্যবহৃত বলে দাবি করা হয়েছে।

ওয়েইডলের নামক নিলাম প্রতিষ্ঠান নুরেমবার্গে এই ‘বিশেষ নিলামের’ আয়োজন করেছে। নুরেমবার্গ হচ্ছে সেই শহরে, যেখানে ১৯৪৫ সালে নাৎসি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মুখোমুখি করা হয়।

জার্মানিতে নাৎসি প্রতীক প্রদর্শন অবৈধ। তবে শিক্ষামূলক বা ঐতিহাসিক মূল্য রয়েছে—এমন ক্ষেত্রে এই বিধিনিষেধ প্রযোজ্য নয়।

এর আগে ২৫ জানুয়ারি হিটলারের তিনটি ছবি নিলামে বিক্রির কথা ছিল। তবে ছবিগুলো ভুয়া সন্দেহে এক দিন আগে ওই নিলাম স্থগিত করা হয়।

হিটলারের এই ছবিগুলো সংগ্রাহকদের উচ্চমূল্যে কেনার আগ্রহ নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে অনেকের মধ্যে। মিউনিখে সেন্ট্রাল ইনস্টিটিউট ফর আর্ট হিস্টোরির স্টেফান ক্লিনেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, নাৎসির সঙ্গে সম্পৃক্ত এসব বাণিজ্য দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। প্রতিবারই এ নিয়ে গণমাধ্যমে চাঞ্চল্য হয় এবং যেগুলো তারা নিয়ে আসে তার দাম বাড়তে থাকে। ব্যক্তিগতভাবে এ বিষয়টি তাঁর বিরক্তিকর লাগে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

স্টেফান ক্লিনেনর মতে, হিটলার ছিলেন শৌখিন চিত্রকর। তাই তাঁর আঁকা চিত্রকর্মগুলো প্রকৃত কি না, তা যাচাই করা কঠিন।

এর আগে ২৫ জানুয়ারি নিলামে তোলার জন্য বার্লিনের বিখ্যাত নিলামকারী প্রতিষ্ঠান ক্লোস ইন্টারনেটে হিটলারের আঁকা তিনটি জলরং ছবির নিলাম বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে বিশ্বব্যাপী ছবি সংগ্রাহকদের মধ্যে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

এর আগে জার্মানির নুরেমবার্গ শহরে হিটলারের একটি ছবি নিলামে চার লাখ ইউরোতে বিক্রি হয়। নিউসচওয়ানস্টাইন দুর্গের অপর একটি ছবি চীনের একজন ক্রেতা এক লাখ ইউরোতে কেনেন।

১৮৮৯ সালে অস্ট্রিয়ার ব্রাউনাও শহরে জন্ম নেওয়া যুদ্ধবাজ হিটলারের নানা পরিচয়ের একটি ছিল শিল্পানুরাগী। ১৯০৭ সালে ভিয়েনায় গিয়ে একাডেমি অব ফাইন আর্টসে যোগ্যতার অভাবে ভর্তি হতে চেয়ে তিনি ব্যর্থ হয়েছিলেন। তারপরও শখ থেকে তিনি ছবি আঁকতেন।

+ There are no comments

Add yours