উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিতে গোপনে ও প্রকাশ্যে সক্রিয় বিএনপির তৃণমূল

0 min read

নিউজ ডেস্ক : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বয়কট করায় বিএনপির তৃণমূল নেতাকর্মীদের মাঝে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। হাইকমান্ডের উপর বিরক্ত হয়ে এই তৃণমূল নেতাকর্মীরা এখন উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিতে গোপনে প্রস্তুতি নিচ্ছে। প্রচারণা চালাচ্ছে সামাজিকমাধ্যমে। অনেকে আবার হাইকমান্ডকে তোয়াক্কা না করেই নির্বাচনের মাঠে নেমেছে। যা দেখে বিব্রত বিএনপির শীর্ষনেতারা।

উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে না বলে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে। বিএনপির হাইকমান্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, উপজেলা নির্বাচনে যদি দলের কোনো নেতা অংশগ্রহণ করে তাহলে তাকে আজীবন বহিষ্কার করা হবে। কিন্তু হাইকমান্ডের এই কথাকে উপেক্ষা করে দলটির অন্তত পাঁচ শতাধিক স্থানীয় পর্যায়ের নেতা এখন উপজেলা নির্বাচনের জন্য মাঠে নেমেছে। অসংখ্য নেতাকর্মী গোপনে প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আর নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীদের হয়ে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে বিএনপির প্রার্থীরা এখন এলাকায় সরগরম। তারা ইফতার পার্টির আয়োজন করেছেন, জনসংযোগ শুরু করেছেন এবং নির্বাচনের জন্য আনুসঙ্গিক প্রস্তুতিও গ্রহণ করেছেন।

বিএনপির স্থানীয় পর্যায়ে নেতারা বলছেন, দলের কেন্দ্রীয় নেতারা যদি তাদেরকে বহিষ্কার করে কিছু করার নেই। দরকার হলে তারা দল করবেন না। কিন্তু উপজেলা নির্বাচনে তাদেরকে অংশগ্রহণ করতেই হবে।

মানিকগঞ্জ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এস এ কবীর জিন্নাহ বলেন, নির্বাচন প্রতিরোধের ডাক দিয়ে নেতারা ঘুমিয়ে ছিলেন, তারা নির্বাচন প্রতিরোধ করতে পারেননি। জেল, জুলুম, মামলা, হামলা সব হচ্ছে আমাদের বিরুদ্ধে। এখন যদি আমরা নির্বাচনও না করি, তাহলে এলাকায় আমাদের কোন অস্তিত্ব থাকবে না। আন্দোলন করা হচ্ছে না, অন্যদিকে যদি নির্বাচনও না করা হয়, তাহলে জনগণের সঙ্গে আমাদের কোনো সম্পর্ক থাকবে না।

হাইকমান্ডের কথা শুনে বারবার একই ভুল করতে চায় না বিএনপির তৃণমূল নেতাকর্মীরা। তাই হাইকমান্ড বাধা দিলেও নির্বাচনের বিকল্প কিছু চিন্তা করছে না তারা।

+ There are no comments

Add yours