রেসিং কারের স্টিয়ারিং হাতে সৌদি নারী

0 min read

নিউজ ডেস্ক: গত বছর থেকেই গাড়ি চালানোর অনুমতি পেয়েছেন সৌদির নারীরা। কিন্তু তার আগ পর্যন্ত দেশটিতে মেয়েদের গাড়ি চালানো নিষিদ্ধ ছিল। নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর থেকেই গাড়ি চালানোয় নারীদের স্বত:স্ফূর্ত অংশগ্রহণ ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে সম্প্রতি সৌদির এক নারী রেসিং কার চালিয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সৌদির বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ ঘোষণা করেন, মেয়েদের গাড়ি চালানোর উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে। এর পরই রাস্তায় গাড়ির স্টিয়ারিং ধরেন নারীরা।

২০১৮ সালের ২৪ জুন মধ্যরাতে রিয়াদের রাস্তায় ইতিহাস সৃষ্টি হয়। কয়েক দশকের নিষেধের বাধা অতিক্রম করে ছুটে চলে গাড়ি, যার স্টিয়ারিং ছিল নারীদের হাতে। এবার রেসিং কারের স্টিয়ারিং হাতে নিলেন রীমা আল জুফালি নামের এক নারী।

জুনে লাইসেন্স পাওয়ার পরই অক্টোবরেই প্রথম রেসে অংশ নেন রীমা। কলেজে পড়তে পড়তেই ফর্মুলা ওয়ানের প্রতি ঝোঁক বাড়ে রীমার। তারপর রেসিং কার লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেন তিনি। ফর্মুলা কার রেসিং স্কুলে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তিনি।

২৬ বছরের রীমার বাড়ি জেদ্দাতে। দেশের বাইরে তিনি স্নাতক পড়ছেন। ফিরে এসে রেসিং শুরুর ইচ্ছা তার। শুধুমাত্র গাড়ি চালানোই নয়, কার রেসিংয়েও যে সে দেশের মেয়েরা কারও চেয়ে কম নয়, সেটা প্রমাণ করতেই তার এই পদক্ষেপ।

রেসিং প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য পরিবারকে চার বছর ধরে বুঝিয়ে রাজি করিয়েছেন রীমা। তিনি বলেন, যতজন তার কাজের বিরোধিতা করেছেন, তার দশ গুণ মানুষ তার সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন। জিটি ৮৬ কার দিয়ে প্রথম রেসিং শুরু করেছেন তিনি। ডিসেম্বরে একটি রেসও জিতেছেন।

+ There are no comments

Add yours