বিমানবন্দরে কঙ্গনাকে থাপ্পড় মারলেন পুলিশ কনস্টেবল

1 min read

লোকসভার সদ্য নির্বাচিত সদস্য ও বিজেপি নেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতকে থাপ্পড় মেরেছেন এক পুলিশ কনস্টেবল। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বৃহস্পতিবার (৬ জুন) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, পাঞ্জাবের চন্ডিগড় বিমানবন্দরে ঘটেছে এ ঘটনা। ওই সময় কঙ্গনা দিল্লিতে যাওয়ার জন্য বিমানবন্দরটিতে গিয়েছিলেন।

কঙ্গনাকে থাপ্পড় মারা ওই নারী কনস্টেবলের নাম কুলিন্দার কৌর। তিনি সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউটির ফোর্সে (সিআইএসএফ) কর্মরত রয়েছেন।

‘কৃষকদের অসম্মান’ করার জন্য কঙ্গনাকে থাপ্পড় মেরেছেন বলে জানিয়েছেন এই নারী কনস্টেবল। এ ঘটনায় তাকে তাৎক্ষণিক বহিষ্কার করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

কঙ্গনা বিজেপির টিকিটে হিমাচল প্রদেশের মান্ডি থেকে নির্বাচন করেন এবং লোকসভার সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

২০২০-২১ সালে ‘খামার আইন (বর্তমানে বাতিল) ও অন্যান্য ইস্যুর বিরুদ্ধে ১৫ মাস ব্যাপী আন্দোলন করেন পাঞ্জাবের কৃষকরা। ওই আন্দোলন নিয়ে বাজে কথা বলায় কঙ্গনাকে থাপ্পড় মেরেছেন বলে দাবি করেছেন পুলিশের এই কনস্টেবল।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা কঙ্গনাকে দ্রুত সরিয়ে নিচ্ছেন। এছাড়া তাকে সিআইএসএফের অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায়।

সিআইএসএফের কমান্ডেন্ট এ ঘটনা তদন্ত করার আশ্বাস দিয়েছেন। এছাড়া সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি স্থানীয় পুলিশকে অবহিত করেন তিনি।

দিল্লিতে যাওয়ার পর সাংবাদিকদের এ ব্যাপারে কোনো কিছু বলেননি কঙ্গনা। তবে পরবর্তীতে এক্সে একটি পোস্টে ঘটনা সম্পর্কে বলেন, “আমি নিরাপদ আছি, আমি ভালো আছি। ঘটনা ঘটেছে চেক-ইনে। নারী নিরাপত্তারক্ষী আমার জন্য অপেক্ষা করছিল। সে তখন পাশ থেকে আসে এবং আমাকে আঘাত করে। এরপর অশ্রাব্য ভাষা ব্যবহার শুরু করে। আমি তাকে জিজ্ঞেস করি কেন আমাকে আঘাত করল। জবাবে সে বলে, ‘আমি কৃষকদের সমর্থন করি’। আমি নিরাপদ আছি। তবে আমার চিন্তা হলো পাঞ্জাবে উগ্রবাদিতার উত্থান নিয়ে। আমরা কীভাবে এটি মোকাবেলা করব।”

২০২০ এবং ২০২১ সালে কৃষকদের আন্দোলন নিয়ে কঙ্গনা বিভিন্ন বাজে মন্তব্য করেন। এ কারণে কৃষকরা তার ওপর ক্ষিপ্ত ছিল।

কয়েকদিন আগে লোকসভা নির্বাচনের জন্য যখন তিনি মান্ডিতে যাচ্ছিলেন তখন চন্ডিগড়ে তার গাড়িবহর আটকে দেয় কৃষকরা।

সূত্র: এনডিটিভি

আরও পড়তে পারেন

+ There are no comments

Add yours